https://banglagolpokobita.com/wp-content/uploads/2018/06/single-red-rose-janna-scott.jpg

কত আশাকরি স্বপ্ন বুনেছিলাম,
চাঁদনী রাতে তোমায় নিয়ে
জোৎস্না কুঁড়োবো রাত্রি গভীর হলে।
তারার সাথে ভাব জমাবো,
যেন মিটমিট করে জ্বলে আর
এক চিমটি আলেয়া ধার দেয়।

রাত্রি শেষে,শিশির কণা জমে ঘাসে,
আলতা পায়ে, ও রাঙ্গা চরণ ফেলে,
হাঁটবে তুমি, হাত রেখে এ হাতে।
চলবো মোরা সূ্র্য উদয়ের দেশে,
আলোক গুচ্ছ আনবো কুঁড়িয়ে বলে,

বৃষ্টি এলো, আধার কালো,
বজ্রপাতে ভয়, জানি,,
সে তে ভয় নয়,
শুধুই জড়িয়ে ধরার অভিনয়।

একই সাথে ভাগাভাগি
বৃষ্টির জলখানি,
ছুয়ে দিতাম ঐ কালো কেশে
গড়িয়ে যাওয়া প্রতিটি ফোঁটা পানি।

বিকেল শেষে,গোধূলি বেলা,
রাখাল ছেলের ঘরে ফেরা,
পক্ষী গুলো ফিরে নীড়ে,
সূর্যি মামা ক্লান্তি নিয়ে
পশ্চিম আকাশটাই হেলে পড়ে।

বিকেলের সেই শান্ত রোদ,
যখন পড়তো তোমার গায়ে,
ভাবতাম, তুমি কি কোন রাজকন্যা,
মনের ঘরেই চলতো বিরোধ।

রাত্রি হলে, আঁধার নামে,
আর তুমি নামতে
আমার বুকের ভাঁজেভাঁজে,
নরম হাতে ছুয়ে যাওয়া স্পর্শ গুলো
জাগাতো এক বিরল অনুভুতি।

অন্ধকারে পুকুর পাড়টা,
বড্ড বেমানান লাগতো,
খুশিতে ধরতে জড়িয়ে,
যখন জোনাকিপোকা জ্বলতো।

বলতে আমায় দাওনা এনে,
একটু খানি আলো,,
রেখে দিবো যতন করে,
দুহাতের পাতায় ঢেকে।

আজো শুনি, সেই মায়াবী হাসি,
অনুভব করি তোমার অনুভুতি,
কিন্তু,, বাস্তবে নেই তুমি,
দূর আকাশে পাড়ি জমিয়েছো,
শূন্য হৃদয়ভুমি,

হাসির শব্দ কোথা হতে এলো!!
ওহহহ,,, স্বপ্ন দেখলাম বোধ হয়,,
ঘুমের ঘোরে আজও স্মৃতিগুলো
আগমন করে নিত্যদিন,
স্মৃতিগুলো তো আর
তোমার আমার মত মরণশীল নয়।

SHARE

1 1 Comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.